By: Daily Janakantha

এবার কোরবানিতে গরু সঙ্কটের আশঙ্কা

শেষের পাতা

22 Jun 2022
22 Jun 2022

Daily Janakantha

এম শাহজাহান ॥ আসন্ন কোরবানি ঈদ সামনে রেখে গরু-ছাগলের মতো গবাদিপশুর দর-দামের হাঁকডাক শুরু হয়েছে। ঈদের আগে চাহিদামতো উপযুক্ত গরুটি হাটে পাওয়া যাবে তো! গত কয়েক বছরের অভিজ্ঞতা তেমন সুখকর ছিলনা নগরবাসীর। শেষ পর্যন্ত কোরবানির ঈদের আগে তাদের পশু নিয়ে কাড়াকাড়ি করতে হয়েছে। এরপরও পশুহাট থেকে গতবছর গরু না পেয়ে শূন্য হাতে ফিরতে হয়েছে শেষ দিনে। বছর ঘুরে আবার সেই কোরবানির ঈদের ক্ষণ গণনা শুরু করেছেন কোরবানিদাতারা। এবার ‘হাটে গরু মিলবে তো’-এই প্রশ্ন ঘুরপাক খাচ্ছে চারদিকে। সারাবছর গোখাদ্যের দামের উর্ধমুখী প্রবণতাসহ নানা সঙ্কটের কারণে দেশে এবার গরু উৎপাদন হ্রাস পাবে বলে মনে করা হচ্ছে। দেশে রেকর্ড দামে বিক্রি হচ্ছে গরুর মাংস। প্রতিকেজি ৭০০-৭২০ টাকায় কিনছেন ভোক্তারা। খামারি মালিকরা বলছেন, ক্রেতাদের বেশি পছন্দ ছোট ও মাঝারি সাইজের গরুর তীব্র সঙ্কট রয়েছে দেশে। কারণ, খামার মালিকরা দ্রুত বর্ধনশীল বিদেশী জাতের বড় আকারের হাইব্রিড গরুর লালন-পালন করছেন। এ অবস্থায় কোরবানি সামনে রেখে বিকল্প উৎস থেকে গবাদিপশু বিশেষ করে গরু-ছাগল খুঁজে সরবরাহ বাড়ানোর তাগিদ দিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। অন্যথায় কোরবানিতে গরু সঙ্কটের মুখে পড়বে দেশ। খবর সংশ্লিষ্ট সূত্রের। জানা গেছে, গত কয়েক বছর আগেও কোরবানির আগে ভারত, মিয়ানমার এবং ভুটান থেকে আমদানি করে গরুর বাড়তি চাহিদা মেটানো হতো। কিন্তু ভারত রফতানি পুরোপুরি বন্ধ করায় এখন দেশীয় গরু ভরসা হয়ে উঠছে। দেশে এই সময়ে বিপুল সংখ্যক খামার গড়েছেন চাষীরা। ব্যাপক সীমাবদ্ধতা থাকার পরও দেশে গরু লালন-পালন করা হচ্ছে-তবে চাহিদাপূরণে হিমশিম খেতে হচ্ছে খামার মালিকদের। ফলে কোরবানিতে যখন বাড়তি চাহিদা তৈরি হয় তখনই গরুর সঙ্কট তৈরি হচ্ছে দেশে। আপদকালীন সঙ্কট মোকাবেলা কিংবা কোরবানির সময় বাড়তি চাহিদা পূরণে গরু-ছাগল বিকল্প উৎস থেকে সরবরাহ বাড়ানোর পরামর্শ দিচ্ছেন সংশ্লিষ্টরা। অন্যথায় এবারও কোরবানিতে গরু নিয়ে কাড়াকাড়ির মতো পরিস্থিতি তৈরি হতে পারে। প্রতিবেশী রাষ্ট্র ভারত থেকে অফিসিয়ালি গরু আমদানির সুযোগ বন্ধ রয়েছে। তবে চাহিদা পূরণে দুদেশের ব্যবসায়ী পর্যায়ে এখনও বিচ্ছিন্নভাবে সীমিত সংখক গরু দেশে আনা হয়। এবারও কোরবানি সামনে রেখে ব্যবসায়ীরা যাতে গরু আনতে পারেন সে বিষয়ে বর্ডারের কঠোরতা কিছুটা শিথিল করা হতে পারে। বাংলাদেশ-ভারত দুদেশের ব্যবসায়ী পর্যায়ে এ বিষয়ে কিছুটা আলোচনা চালিয়ে যাওয়া হচ্ছে। এক্ষেত্রে সরকারের নীতিগত সহায়তা প্রয়োজন বলে মনে করা হচ্ছে। করোনার প্রকোপ কমে আসা এবং আগামী সংসদ নির্বাচন সামনে রেখে দেশে এবার কোরবানি বাড়বে। কিন্তু সেই তুলনায় গবাদি পশুর উৎপাদন নেই। সরবরাহ কম বলেই গরুর মাংসের দাম বাড়ছে হু হু করে।
এদিকে, গরু আসা বন্ধ হওয়ার পর এখন দেশী গবাদিপশু শতভাগ ভরসার জায়গা হয়ে উঠছে। কিন্তু গোখাদ্যের অতিরিক্ত দাম ও দেশীয় উৎপাদম কম হওয়াসহ নানামুখী কারণে এবার কোরবানির ঈদে গরুসহ গবাদিপশু সঙ্কটের আশঙ্কা করা হচ্ছে। আকারে ছোট ও মাঝারি সাইজের গরুর সঙ্কট তীব্র হতে পারে। এ কারণে কোরবানির হাটে পর্যাপ্ত সংখ্যক পশু সরবরাহ ও সেগুলোর ন্যায্য দাম নিশ্চিত করতে আগেভাগে কৌশল নির্ধারণে সর্বোচ্চ জোর দেয়ার তাগিদ দিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। অন্যথায় কোরবানির হাটে অস্থিরতা তৈরি হওয়ার ঝুঁকি রয়েছে। দেশের বিভিন্ন স্থানে বন্যাজনিত কারণে কোরবানি পশু নিয়ে অনাকাক্সিক্ষত বিপদের মুখে রয়েছেন উৎপাদনকারী ও খামার মালিকরা। বন্যা নতুন উদ্বেগ তৈরি করছে। বিশেষ করে সিলেট, সুনামগঞ্জ, নেত্রকোনাসহ পুরো উত্তর-পূর্বাঞ্চল, উত্তরবঙ্গের বিভিন্ন জেলায় বন্যা সংঘটিত হওয়ার কারণে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতির আশঙ্কা করা হচ্ছে। বন্যা থেকে রক্ষা পায়নি কোরবানিযোগ্য গবাদিপশু। মানুষের সঙ্গে গবাদিপশু উদ্ধার করে নিরাপদ আশ্রয়ে নিয়ে যেতে কাজ করছে স্থানীয় প্রশাসন।
এ বিষয়ে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয় থেকে বিশেষ নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। উপজেলা পর্যায়ে কর্মরত থানা পশু চিকিৎসক কোরবানিযোগ্য পশুর চিকিৎসাসেবা দিচ্ছেন। আজ বৃহস্পতিবার কোরবানির গবাদিপশুর সার্বিক পরিস্থিতি নিয়ে জরুরী বৈঠক ডেকেছে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ অধিদফতর। ওই বৈঠকে কোরবানির প্রস্তুতি, কোরবানিযোগ্য পশুর সংখ্যা, পশুর নিরাপদ পরিবহন এবং ন্যায্যদাম নিশ্চিত করার বিষয়টির ওপর সর্বোচ্চ গুরুত্ব দেয়া হবে। এছাড়া দেশের ব্যবসায়ী ও শিল্পপতিদের শীর্ষ সংগঠন ফেডারেশন অব বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্স এ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিও (এফবিসিসিআই) কোরবানিযোগ্য গবাদিপশুর বিষয়ে শীঘ্রই একটি জরুরী বৈঠক করার প্রস্তুতি গ্রহণ করেছে। আগামী ১০ কিংবা ১১ জুলাই সারাদেশে কোরবানি ঈদ পালিত হবে- সেভাবেই সবকিছু এগিয়ে চলছে। রাজধানী ঢাকায় এবার ১৭টি হাটে এ পশু বেচাকেনার জন্য নির্ধারণ করেছে দুই সিটি কর্পোরেশন।
গত বছরের মতো মহামারী করোনার প্রকোপ না থাকায় এবার দেশে কোরবানি বেশি হবে বলে আশা করা হচ্ছে। কিন্তু সেই তুলনায় পশুর জোগান কতটা নিশ্চিত করা সম্ভব হবে তা নিয়ে শঙ্কা বাড়ছেই। খোদ খামার মালিকরা তাদের আশঙ্কার কথা জানিয়ে বলেছেন, এবার ছোট ও মাঝারি ধরনের গরুর সঙ্কট হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে।
তবে সেই তুলনায় পর্যাপ্ত পরিমাণে সরবরাহ থাকবে বড় আকারের গরুর। এছাড়া গোখাদ্যের অত্যধিক দাম বাড়া, লোকসানের মুখে অনেক খামারে উৎপাদন কমে যাওয়াসহ নানা ধরনের সঙ্কটের কারণে কোরবানিযোগ্য গবাদি পশুর সংখ্যা তেমন বাড়ানো যায়নি। ফলে গতবারের তুলনায় বেশি কোরবানি হলে চাহিদা অনুযায়ী সরবরাহ করা খামার মালিকদের জন্য কঠিন হয়ে পড়বে। যদিও মৎস্য প্রাণিসম্পদমন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম সম্প্রতি জানিয়েছেন, দেশে গবাদিপশুর কোন সঙ্কট নেই। দেশীয় গরু-ছাগলেই শতভাগ কোরবানি হবে।
এদিকে, দেশে কোরবানিযোগ্য গরুর যে সঙ্কট রয়েছে এটা প্রায় স্পষ্ট। গত ঈদ-উল-ফিতরের পর প্রতিকেজি গরুর মাংসে প্রায় ১০০ টাকা পর্যন্ত দাম বেড়েছে। ভবিষ্যতে দাম আরও বাড়ার আশঙ্কার কথা জানিয়েছেন খামার মালিকরা। এ অবস্থায় গরুর পর্যাপ্ত সরবরাহ নিশ্চিত করতে প্রতিবেশী রাষ্ট্র ভারত ও মিয়ানমার থেকে কিছু গবাদি আনার চেষ্টা করা হচ্ছে। বিশেষ করে ভারত থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে গরু আনা সম্ভব না হলেও অনানুষ্ঠানিকভাবে আনতে বর্ডারে কড়াকড়ি আরোপ থেকে কিছুটা সরে আসতে পারে উভয় দেশ। কোরবানি সামনে রেখে এ ধরনের একটি উদ্যোগ বাস্তবায়নের প্রক্রিয়া বেশ এগিয়ে নেয়া হয়েছে। এছাড়া মিয়ানমার ও নেপাল থেকেও গরু আনা হতে পারে। এ প্রসঙ্গে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের এক উর্ধতন কর্মকর্তা জনকণ্ঠকে বলেন, ভারত থেকে অফিসিয়ালি গরু আনার কোন সুযোগ নেই। তারপরও দুদেশের ব্যবসায়ী-টু ব্যবসায়ী পর্যায়ে যদি কিছু গরু আসে তাতে ক্ষতির তো কোন কারণ দেখছি না। কোরবানিতে বাংলাদেশের অতিরিক্ত গরু লাগবে।
চাহিদা কম থাকলেও খামারে উৎপাদন হচ্ছে হাইব্রিড বড় জাতের গরু ॥ ছোট ও মাঝারি মানের দেশী জাতের গরু বেশিরভাগ কোরবানিদাতাদের পছন্দের তালিকা শীর্ষে থাকে। কিন্তু খামারগুলোতে উৎপাদন হচ্ছে-হাইব্রিড ফিজিয়ান, ব্রাহমা ও অস্ট্রেলিয়ানসহ নানা জাতের বড় গরু। আকারে বড়, মাংস বেশি এবং বাহ্যিক সৌন্দর্য্যরে কারণে এসব গরুর দাম অনেক বেশি হয়, যা সাধারণ মানুষের নাগালের বাইরে। জাত, আকার ও সাইজ ভেদে সর্বনি¤œ ২ থেকে ৩০ লাখ টাকা পর্যন্ত বিক্রি হয় বড় জাতের গরুগুলো। কিছু ধনাঢ্য ও শৌখিন মানুষ এসব গরুর ক্রেতা।
এ প্রসঙ্গে বাংলাদেশ ডেইরি ফার্মার্স এ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক ইমরান হাসান জনকণ্ঠকে বলেন, ব্যাপক চাহিদা থাকার পরও দেশে ছোট গরুর সঙ্কট রয়েছে। এ কারণে কোরবানির সময় গরু নিয়ে শেষ মুহূর্তে টানাটানি হয়। তবে অনেক খামারি বড় গরু বিক্রি করতে পারেনি। গতবছরে হাটে ওঠানো অবিক্রিত গরু এ বছরও খামারে লালন-পালন করা হচ্ছে। এতে করে খামারিরা লোকসান গুনছেন।
বেশ কয়েকটি উদ্যোগে গরুর দাম কমাতে পারে সরকার ॥ গোখাদ্যের দাম কমানো, হাটে হাসিল কমানো বা মাফ করা, গরুবাহী ট্রাক টোল ফ্রি, গরুবাহী ট্রাক থেকে চাঁদা তোলা, অসাধু সিন্ডিকেটের হাত থেকে কোরবানির হাট মুক্ত রাখা, এবং চামড়ার দাম বাড়ানোর মতো পদক্ষেপ গ্রহণ করা হলে কোরবানির গরুর দাম কমতে পারে বলে জানিয়েছেন খামার মালিকরা। তাদের মতে, দেশে গরুর মাংসের দাম বাড়ার পেছনে অসাধু সিন্ডিকেট ব্যবসায়ীদের নানা ধরনের মেকানিজম রয়েছে। এসব ভেঙ্গে দেয়া গেলে শুধু কোরবানির গরুই নয়, মাংসের দামও হ্রাস পাবে। এ প্রসঙ্গে এফবিসিসিআইয়ের সহসভাপতি মোঃ আমিন হেলালী জনকণ্ঠকে বলেন, যেভাবে গরুর মাংসের দাম বাড়ছে তাতে কোরবানির পশুর দাম বাড়তে পারে। তবে ন্যায্যদামেই যাতে হাটে পশু বেচাকেনা হয় সে বিষয়ে নজর রাখবে এফবিসিসিআই। তিনি জানান, শীঘ্রই কোরবানির প্রস্তুতি ও গবাদিপশুর বিষয়ে একটি বৈঠক করবে এফবিসিসিআই।
কোরবানিযোগ্য গবাদি পশুর প্রকৃত সংখ্যা নিয়ে বিভ্রান্তি ॥ আসলে দেশে কোরবানিযোগ্য গবাদিপশুর প্রকৃত সংখ্যা কত তা নিয়ে বিভ্রান্তি রয়েছে। প্রাণিসম্পদ অধিদফতরের এক তথ্যমতে, গরু, ছাগল, ভেড়া ও উট মিলিয়ে দেশে ১ কোটি ২১ লাখ ২৪ হাজার ৩৮৯টি কোরবানিযোগ্য পশু রয়েছে। এর মধ্যে ৪৬ লাখ ১১ হাজার ৩৮৩টি গরু ও মহিষ এবং ৭৫ লাখ ১১ হাজার ৫৯৭টি ছাগল ও ভেড়া বাজারে বিক্রির জন্য এবার হাটে উঠতে পারে। গত বছর কোরবানিযোগ্য পশু ছিল ১ কোটি ১৯ লাখ ১৬ হাজার ৭৬৫টি। এছাড়া বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে কিছু উট ও দুম্বা আমদানি করে দেশে বাজারজাতকরণ করা হয় কোরবানির সময়ে।

The Daily Janakantha website developed by BIKIRAN.COM

Source: জনকন্ঠ

সম্পর্কিত সংবাদ
নড়াইলের কলেজ শিক্ষক স্বপন বিশ্বাসকে পুলিশের উপস্থিতিতে জুতার মালা পরানোর ঘটনা কীভাবে ঘটল?

বাংলাদেশের নড়াইলে কলেজ শিক্ষক স্বপন কুমার বিশ্বাসের গলায় জুতার মালা পরানোর ঘটনা নিয়ে ব্যাপক সমালোচনার মুখে বেশ কয়েকদিন পর মামলা Read more

ডেমরার বাসায় স্বামী-স্ত্রীর মরদেহ

রাজধানীর ডেমরার একটি বাসা থেকে লিয়াকত আলী (৫০) ও স্ত্রী সীমা আক্তারের (৪০) মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। তবে মঙ্গলবার (২৮ Read more

বুড়িগঙ্গায় লঞ্চডুবি: এ বছরেই বিচার সম্পন্নের আশা

২০২০ সালে ২৯ জুন বুড়িগঙ্গায় ময়ূর-২ লঞ্চের ধাক্কায় ডুবে যায় মর্নিং বার্ড নামের একটি লঞ্চ। এতে মর্নিং বার্ডের ৩৪ যাত্রী Read more

ভারতের ২২৫ রান তাড়া করে ৪ রানে হারলো আয়ারল্যান্ড

রুদ্ধশ্বাস এক ম্যাচ। শেষ বল পর্যন্ত হলো লড়াই। কিন্তু শেষ হাসিটা হাসতে পারলো না আয়ারল্যান্ড। শেষ বলে জিততে ৬ রান Read more

বিয়ের প্রলোভনে শারীরিক সম্পর্ক, অষ্টম শ্রেণির ছাত্রী ৬ মাসের অন্তঃস্বত্ত্বা

পাবনার চাটমোহরে বিয়ের প্রলোভনে শারীরিক সম্পর্ক করায় অষ্টম শ্রেণির এক ছাত্রী ৬ মাসের অন্তঃস্বত্ত্বা হয়ে পড়েছেন।

রাজধানীর সড়কে প্রাণ গেল পুলিশ সদস্যের

রাজধানীর গোলাপবাগে কাভার্ড ভ্যানের ধাক্কায় মো. সোহাগ (৩৩) নামে এক পুলিশ কনস্টেবলের মৃত্যু হয়েছে।

আমরা নিরপেক্ষ নই ,    জনতার পক্ষে - অন্যায়ের বিপক্ষে ।    গণমাধ্যমের এ সংগ্রামে -    প্রকাশ্যে বলি ও লিখি ।   

NewsClub.in আমাদের ভারতীয় সহযোগী মাধ্যমটি দেখুন