By: Daily Janakantha

বিশ্ব জগৎ দেখব

উপ-সম্পাদকীয়

14 Jun 2022
14 Jun 2022

Daily Janakantha

ফরাসী ঔপন্যাসিক ভিক্টর হুগোর লা মিজারেবেলের মূল চরিত্র জ্যা ভালজা ছেলেবেলায় বাবা-মা হারিয়ে বোনের সংসারে আশ্রয় নেন। ভাগ্যের করাঘাতে বোনের জামাই গত হওয়ায় ২৫ বছর বয়সে সাত সন্তানসহ বোনের সংসারের দায়িত্ব নিতে হয়। এক শীতে কাজ না পাওয়ায় বাচ্চাদের খাবার সংগ্রহে রুটি চুরি করতে বাধ্য হন ভালজা এবং হাজার মিনতির পরও তার রক্ষা হয় না, পাঁচ বছরের জেল হয়। তিক্ত হৃদয় উপলব্ধি করে, সমাজ গরিবের রুটির ব্যবস্থা না করতে পারলেও ঠিকই জেলে পুরে দেয়।
এরপর বারবার জেল ছেড়ে পালাবার চেষ্টার ফল হিসেবে ৫ বছরের সাজা দাঁড়ায় ১৯ বছরে। ২৫ বছরের ভালজা বের হন ৪৬ বছরের প্রৌঢ়া হয়ে। দরিদ্র ভালজা এবারে ঘুরে দাঁড়ান বিশপ মিরিয়েলের অর্থ সহায়তায়, অলঙ্কার বাণিজ্যের মাধ্যমে। ভাগ্যের পরিহাসে এবারেও এক মিথ্যা মামলায় যাবতজীবন দণ্ডপ্রাপ্ত হন। দগ্ধ ভালজা এবার পালিয়েই যান এবং কোজেত নামের এক শিশুকে দত্তক নেন। দিনে দিনে যুবতী হয়ে ওঠা মেয়েও বেশিদিন সাঙ্গী হয় না। মারিয়াসের সঙ্গে প্রেম-প্রণয়ে ঘর ছাড়েন এবং বাবা ভালজাকে ভুল বোঝে। জীবনের অন্তিম শয়নে তখন ভালজা প্রতীক্ষা করে মেয়ের মুখ দর্শনের।
বাংলাদেশের উন্নয়ন ব্যাকরণ শেখ হাসিনার জীবন উপাখ্যান লা মিজারেবলের মতো হুবহু না হলেও বেদনার দর্শন প্রায় কাছাকাছি। দীর্ঘ ষড়যন্ত্রের ফল হিসেবে বাবা-মাসহ পুরো পরিবার হারানো শেখ হাসিনাকে আশ্রয় নিতে হয়েছে পরবাসে। এরপরও সরাসরি মৃত্যু হুমকি, বুলেট, গ্রেনেড এবং হেলিপ্যাডে বোমার মতো মৃত্যুর মিছিলকে চ্যালেঞ্জ করে মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস পুনরুদ্ধারে ব্রতী হয়েছেন। এক কথায় সব হারিয়েও দায়িত্ব বয়ে চলেছেন। তবে তাঁকেও অন্যায্যভাবে জেলে পুরা হয়েছিল। তিনি অবশ্য ভালজার মতো পালিয়ে বাঁচতে চাননি বরং ন্যায্যতার প্রশ্নে লড়াই করে প্রতিনিয়ত বিজয় হাসিল করেছেন। যার সাম্প্রতিক উদাহরণ ‘পদ্মা সেতু’। যদিও এ নিয়ে কটূক্তিও কম হয়নি। দেখা গেছে এর প্রতিটি স্প্যান বসানো নিয়েই সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে। যদিও এ নিয়ে চিন্তার বিশেষ কিছু নেই। কারণ, উদ্যাপনের অভ্যাস কিংবা ইতিহাস কোনটাই এখানে পূর্বাপর হয়ে ওঠেনি। যদি থাকত তাহলে পদ্মার বুকে ২০১৭ সালের ৩০ সেপ্টেম্বর ৩৭ ও ৩৮ নম্বর খুঁটির ওপর প্রথম স্প্যান এবং ১০ ডিসেম্বর ১২ ও ১৩ নম্বর খুঁটির ওপর ৪১ নম্বর স্প্যানটি বসানোর পর উদ্যাপনের ঢং রাজনৈতিক বিভেদের বাইরে সকলের চোখে-মুখে ভাসত।
সময়ের স্রোত কিছু মানুষকে নির্মাণ-বিনির্মাণ করে ভবিষ্যত ইতিহাসের জন্য। শেখ হাসিনা সেই আত্মবিশ্বাসে যিনি প্রবল নিরুৎসাহ, অসহযোগিতা এবং ষড়যন্ত্রের দামামায় বাংলার সততা এবং স্পর্ধার স্মারক পদ্মা সেতুকে বাস্তায়নে এককভাবে এগিয়ে গেছেন। বলাবাহুল্য, তৎকালীন অনেকেই পদ্মা সেতু নিয়ে বিশ্বব্যাংকের অপবাদমূলক লম্ফঝম্ফকে মেনে তাদের অংশগ্রহণ কামনা করেছিলেন। একক শেখ হাসিনাই সাদাকে সাদা এবং কালাকে কালা চিহ্নিত করে সকল কালাকানুন মিথ্যা প্রমাণ করেছেন এবং বাংলার সত্যকে চরম সুন্দরের মর্যাদায় নিয়ে গেছেন। শুধু তাই নয়, এই উদ্যোগ যে লা মিজারেবেলের সামাজিক বাস্তবতার মতো কাউকেই কর্মহীন ক্ষুধাসম্পন্ন মানুষ রাখবে না, তার পরিসংখ্যান খোদ বিচ্ছেদ ও অপবাদ দেয়া বিশ্বব্যাংক, এশীয় উন্নয়ন ব্যাংক (এডিবি) করেছে। তাদের মতে, এই সেতুর কারণে প্রায় ৩ কোটি মানুষ সরাসরি উপকৃত হবেন, দারিদ্র্য কমবে ১.৯ হারে এবং দেশের মোট জিডিবির সঙ্গে আরও ১.২ শতাংশ যুক্ত হবে। শুধু তাই নয়, দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের ২১ জেলা রাজধানীর সঙ্গে যুক্ত হবে এবং এশিয়ান হাইওয়ের সঙ্গে যুক্ত হবার সুযোগও তৈরি হবে। ভিন্নভাবে বললে পরিকল্পিতভাবে সেতুর দুই পাশেই অর্থনৈতিক জোন তৈরির ক্ষেত্র রচিত হবে।
শেখ হাসিনার শান্ত সাহসেই দিনে দিনে গৌরবের শিখরে পৌঁছেছেন। মজার বিষয় হলো পদ্মা সেতুকে নিয়ে বিশ্বের দাতা সংস্থারগুলো দুর্নীতি নামক যে নাটক মঞ্চস্থ করেছিল তা ক্রমেই রুপালি পর্দার বাংলা সিনেমার রূপ নিয়েছে। যেমন রুপালি পর্দায় দেখা যায়, সফল না হওয়ায় বাবা তার কন্যাকে পাত্রের থেকে ছিনিয়ে নেয়। সাফল্য হস্তগত হলে ইনিয়ে-বিনিয়ে ভুল স্বীকার করে কন্যাকে সেই পাত্রেই পাত্রস্থ করেন। শেখ হাসিনার পদ্মা সেতুর ক্ষেত্রেও তাই ঘটেছে। প্রাথমিক অবস্থায় কালিমা দিলেও পরে সেই দাতা সংস্থারাই অর্থ এবং সম্পর্কের তদ্বির নিয়ে ‘ধরনা’ দিয়েছেন শেখ হাসিনার কাছে।
শেখ হাসিনার কারণেই বাঙালী আজ জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের মতো বলতে শিখেছেন, ‘বিশ্ব জগৎ দেখব আমি আপন হাতের মুঠোয় পুরে’। আর এখানেই লা মিজারেবেলের জ্যা ভালজার সঙ্গে শেখ হাসিনার বৈপরীত্য। শেখ হাসিনা তাঁর অমোঘ আরাধ্য দেশপ্রেমকে একের পর এক সিঁড়ি ভেঙ্গে জীবনের জানান দিয়ে আপন করেছেন। আর ভালজা অপেক্ষায় রয়েই গেছেন।

লেখক : প্রশিক্ষণ বিষয়ক সম্পাদক, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদ
tu.duhaiderji@gmail.com

The Daily Janakantha website developed by BIKIRAN.COM

Source: জনকন্ঠ

সম্পর্কিত সংবাদ
বানভাসিদের নিয়ে ফকির শাহাবুদ্দিনের গান

বানভাসিদের নিয়ে ফকির শাহাবুদ্দিনের গান সংস্কৃতি অঙ্গন 25 Jun 2022 25 Jun 2022 Daily Janakantha সংস্কৃতি প্রতিবেদক ॥ বানভাসিদের নিয়ে Read more

নানা আয়োজনে নজরুল জয়ন্তী উদ্যাপন

নানা আয়োজনে নজরুল জয়ন্তী উদ্যাপন সংস্কৃতি অঙ্গন 25 Jun 2022 25 Jun 2022 Daily Janakantha নিজস্ব সংবাদদাতা, শাহজাদপুর ॥ নানা Read more

সেতুর চেয়েও বড়

সেতুর চেয়েও বড় প্রথম পাতা 24 Jun 2022 24 Jun 2022 Daily Janakantha বিশ্বের কোন প্রকল্প নিয়ে এত আলোচনা হয়নি। Read more

পদ্মা সেতুর ডাক টিকিট উন্মোচন করলেন প্রধানমন্ত্রী

পদ্মা সেতুর ডাক টিকিট উন্মোচন করলেন প্রধানমন্ত্রী জাতীয় 25 Jun 2022 25 Jun 2022 Daily Janakantha অনলাইন ডেস্ক ॥ প্রধানমন্ত্রী Read more

আর্থ-সামাজিক উন্নয়নের করিডর

আর্থ-সামাজিক উন্নয়নের করিডর উপ-সম্পাদকীয় 25 Jun 2022 25 Jun 2022 Daily Janakantha ২৫ জুন ২০২২ উদ্বোধনের পর চালু হবে বাঙালীর Read more

স্বগর্বে ফিরলেন সেই আবুল হোসেন

স্বগর্বে ফিরলেন সেই আবুল হোসেন জাতীয় 25 Jun 2022 25 Jun 2022 Daily Janakantha অনলাইন ডেস্ক ॥ পদ্মা সেতুর উদ্বোধন Read more

আমরা নিরপেক্ষ নই ,    জনতার পক্ষে - অন্যায়ের বিপক্ষে ।    গণমাধ্যমের এ সংগ্রামে -    প্রকাশ্যে বলি ও লিখি ।   

NewsClub.in আমাদের ভারতীয় সহযোগী মাধ্যমটি দেখুন