By: Daily Janakantha

জনগণ কখনও সন্ত্রাসী গডফাদারকে গ্রহণ করেনি ॥ আইভী

শেষের পাতা

09 Jan 2022
09 Jan 2022

Daily Janakantha

মোঃ খলিলুর রহমান, নারায়ণগঞ্জ ॥ নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে (নাসিক) যতই দিন ঘনিয়ে আসছে ততই নির্বাচনী উত্তাপ আরও ছড়িয়ে পড়ছে। এ নির্বাচনে মেয়র পদে প্রধান দুই প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী আওয়ামী লীগের প্রার্থী ডাক্তার সেলিনা হায়াৎ আইভী ও স্বতন্ত্র প্রার্থী এ্যাডভোকেট তৈমুর আলম খন্দকারের পাল্টাপাল্টি বক্তব্যে ভোটারদের মধ্যে চলছে নানা আলোচনা-সমালোচনা। নির্বাচনে আর মাত্র ৬ দিন বাকি। নির্বাচনী প্রচার শেষ দিকে চলে এসেছে। তাই দুই হেভিওয়েট প্রার্থী আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী ডাক্তার আইভীর নৌকা ও স্বতন্ত্র প্রার্থী তৈমুরের হাতির প্রচারে পুরো সিটি এলাকা মুখরিত হয়ে উঠেছে। নগরবাসীর অভিমত, এ নির্বাচনে সাত মেয়র প্রার্থী মাঠে থাকলেও তুমুল প্রতিদ্বন্দ্বিতা হবে নৌকা ও হাতি প্রতীকের মধ্যে। আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী ডাক্তার আইভীর পক্ষে কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ, জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগ, যুবলীগসহ আওয়ামী লীগের অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা মাঠে কাজ করছেন।
অপরদিকে, স্বতন্ত্র প্রার্থী এ্যাডভোকেট তৈমুরের পক্ষে তার স্বজন ও সমর্থকরা নির্বাচনী মাঠ চষে বেড়াচ্ছেন। সব মিলিয়ে দুই হেভিওয়েট প্রার্থীর প্রচার বেশ জমে উঠেছে। পুরো সিটি এলাকা এখন নির্বাচনী জ্বরে কাঁপছে। এ নির্বাচনে ২৭টি ওয়ার্ডে ১৮২ জন সাধারণ কাউন্সিলর ও সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর প্রার্থীরা প্রচার ও গণসংযোগ আরও বাড়িয়ে দিয়েছেন। আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী ডাক্তার সেলিনা হায়াৎ আইভী রবিবার নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের ২২নং ওয়ার্ড থেকে গণসংযোগ শুরু করেন। এ সময় ডাক্তার আইভী বলেন, জনগণ কখনও সন্ত্রাসী, গডফাদার, চাঁদাবাজ এবং খুনীকে গ্রহণ করেনি। অপরদিকে, স্বতন্ত্র প্রার্থী এ্যাডভোকেট তৈমুর আলম খন্দকার রবিবার নগরীর ১২নং ওয়ার্ডে গণসংযোগ শুরু করেন। এ সময় তিনি বলেন, আমার প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী তার নিজ দলের এমপিদের গডফাদার বলেছেন।
এ সময় মেয়র প্রার্থী ডাক্তার আইভীকে ফুলের তৈরি নৌকা দিয়ে ভোটার ও নেতাকর্মীরা শুভেচ্ছা জানান। ডাক্তার আইভী গণমাধ্যমকে বলেন, নারায়ণগঞ্জের জনগণ কখনও সন্ত্রাসী, গডফাদার, চাঁদাবাজ এবং খুনীকে গ্রহণ করেনি। নারায়ণগঞ্জের স্থানীয় নির্বাচনে সেটা বারবার প্রমাণিত হয়েছে। কেন্দ্র কেন্দ্রের কাজ করবে, দল দলের কাজ করবে, জনতা জনতার কাজ করবে। তিনি বলেন, কেন্দ্র সব কিছু দেখছে, তারা অবগত আছেন। তারা কী ব্যবস্থা নেবেন- সেটা তাদের ব্যাপার। আমার বিষয় আমার জনগণ। আইভী বলেন, পুরো নারায়ণগঞ্জ অর্থ্যাৎ সিদ্ধিরগঞ্জ, বন্দর এবং নারায়ণগঞ্জের ভোটাররা আমার কথা বলে। ধর্মপ্রাণ মুসলমানরা আমার কথা বলে। আমার বিরুদ্ধে প্রচুর অপপ্রচার চালানো হয়েছে। বিভ্রান্ত ছড়ানো হয়েছে। ধর্মীয় বিষয়ে উস্কানি দেয়া হয়েছে। কিন্তু কোনটাই কাজ হয়নি। তিনি বলেন, আমি এই শহরবাসীর জন্য ৭টি মসজিদ নির্মাণ করেছি। আমি শ্মশানের কাজ করেছি, আমি বিভিন্ন ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানের কাজ করেছি। আশা করি, ধর্মপ্রাণ মানুষ সেই অপপ্রচারে কান দেবেন না। জনগণ আমার সঙ্গে আছে, তারা কোথায়ও ভয় পাবে না। ডাক্তার সেলিনা হায়াৎ আইভী বলেন, আমি তাকে (শামীম ওসমান) এটা (গডফাদার) বলিনি, এটা তার বিগত ত্রিশ বছরের উপাধি। শুধু নারায়ণগঞ্জ নয়, সারা বাংলাদেশ তাকে জানে। আওয়ামী লীগ অনেক বড় দল। এখানে সবার স্থান আছে। জনপ্রিয়দের যেমন স্থান আছে, বিতর্কিতদেরও স্থান আছে। একটা বিশাল দলের মধ্যে সবাই থাকে। নদী যেমন সাগরের স্রোতে ভেসে যায়। যারা টিকে থাকে তারা টিকে থাকে। আওয়ামী লীগ একটি বিশাল বড় জনসমুদ্র। এখানে যে টিকে থাকার টিকে থাকবে, যে চলে যাওয়ার চলে যাবে। আইভী বলেন, যেহেতু প্রধানমন্ত্রী নৌকা দিয়েছেন, তিনি খোঁজখবর রাখছেন, আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির নেতাদের টিম এখানে আছে। প্রধানমন্ত্রী জানে নারায়ণগঞ্জের জনগণ আমার সঙ্গে আছে। একজন জনপ্রতিনিধি সকল জনগণের হয়। আমি যখন পাস করি, করার পর বলেছি আমি সকলের ভোটে নির্বাচিত হয়েছি। কিন্তু আমার পরিচয় আমি আওয়ামী লীগ। আমি বংশানুক্রমে আওয়ামী লীগ করি। আমি যখন একটা রাস্তা করি, তখন হিসাব করি না আওয়ামী লীগ যাবে না বিএনপি যাবে। আমি দলমতের উর্ধে উঠে কাজ করেছি, ভবিষ্যতেও করব।
আমার প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী তার নিজ দলের এমপিদের গডফাদার বলেছেন- তৈমুর ॥ স্বতন্ত্র প্রার্থী এ্যাডভোকেট তৈমুর আলম খন্দকার রবিবার নগরীর ১২ ওয়ার্ডের বিভিন্ন এলাকায় গণসংযোগ করেন। এ সময় তিনি বলেন, আমার প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী তার নিজ দলের এমপিদের গডফাদার বলেছেন। বিষয়টি তাদের নিজস্ব ও দলীয় ব্যাপার। এখানে আমাকে জড়িত করা হয়েছে। সে বিষয়ে আমার বক্তব্য স্পষ্ট। তিনি বলেন, ২০১৮ সালে প্রধানমন্ত্রী তিনবার বলেছেন, তৈমুর আলম একজন জয়ী হবার মতো প্রার্থী। বিগত ৫০ বছরে মানুষের সঙ্গে আমার সম্পর্কের কথা বিবেচনা করে প্রধানমন্ত্রীও আমাকে ভোট দিতেন। আমি আরও দৃঢ়তার সঙ্গে বলতে চাই, মেয়র আইভী যদি আজকে প্রার্থী না হতেন, তিনিই আমার নির্বাচনে আমাকে সমর্থন করতেন। তিনি আমেকে ভোট দিতেন। এটা সত্য কি মিথ্যা তা নারায়ণগঞ্জের মানুষকে জিজ্ঞেস করলেই পাওয়া যাবে এবং বিভিন্ন সময়ে আমারও কোন ভূমিকা ছিল কিনা- সেটাও জিজ্ঞাসা করবেন। এখন নির্বাচনের মাঠে এসে তিনি তার দলের বিষয়ে তিনি আরও অনেক কথাই বলছেন। তিনি শুধু সরকারী দলকেই বিতর্কিত করেন নাই, তিনি আমার নেত্রী সম্পর্কেও খারাপ কথা বলেছেন। তিনি বলেছেন যে, দুই নেত্রী বাংলাদেশকে ধ্বংস করে দিয়েছেন। দ্ইু নেত্রীকেই যেখানে তিনি ছাড় দেন নাই, তিনি আমাকেও ছাড় দেবেন না। আমি মনে করি, তিনি সাবেক মেয়র এবং বর্তমান মেয়র প্রার্থী হিসেবে তার বক্তব্য আরও সাবলীল এবং বির্তক সৃষ্টি করে না এমন বক্তব্য হওয়া উচিত। প্রতিদিনই তিনি বির্তক সৃষ্টি করার মতো বক্তব্য দিয়ে যাচ্ছেন। তিনি তার দলের নেত্রী এবং আমার নেত্রী সম্পর্কেও সমালোচনা করেছেন। যেটা তার পছন্দ সেটা অবলীলায় তিনি বলে যাবেন। এটা বিচারের ভার নারায়ণগঞ্জবাসীর ওপর ছেড়ে দিলাম। তৈমুর বলেন, আমি নির্বাচন নিয়ে শঙ্কিত এ জন্য যে, আমি কোন দলের ব্যানারে দাঁড়াইনি। আপনারা পত্রিকায় দেখেছেন বিএনপি, আওয়ামী লীগ, জাতীয়পার্টিসহ ধর্মনিরপেক্ষ দলও আমাকে সমর্থন দিয়ে যাচ্ছে। আরেক প্রশ্নের জবাবে তৈমুর বলেন, আজকের পথসভা কি বলে, দলের প্রত্যেকটি নেতকর্মী আমার সঙ্গে আছে। তারা নারায়ণগঞ্জের ভোটার, তারা নারায়ণঞ্জ সিটি কর্পোরেশনকে ট্যাক্স দেয়। তারা নারায়ণগঞ্জের সুপেয় পানি খেতে চায়। তারা বিদ্যুত চায়, তারা গ্যাস চায়। তারা যানজটবিহীন চলতে চায়, তারা জলাবদ্ধতামুক্ত নারায়ণগঞ্জ চায়। বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টার পদ থেকে প্রত্যাহার প্রসঙ্গে তৈমুর বলেন, আমার জন্য ভালো হয়েছে। কেন্দ্র ২০১১ সালের সিটি নির্বাচনে আমাকে যেভাবে শোয়ায়ে ফেলেছে, এখন তো আর কেন্দ্রের সেই ক্ষমতা নেই। তার সুযোগও নেই। তারা তো আমাকে রিলিজ কর দিয়েছেন। এখন সব দলের জনগণের আমার পক্ষে কাজ করার সুযোগ হয়েছে। আমরা তো নারায়ণগঞ্জবাসী। আমরা যেমন রাজনীতি করি, বিএনপি করি, পাশাপাশি নারায়ণগঞ্জের জনগণ ও সমাজ নিয়েও কাজ করি।
সাংবাদিকদের সঙ্গে তৈমুর আলম খন্দকারের মতবিনিময় ॥ আওয়ামী লীগ দলীয় সাংসদ শামীম ওসমানের পায়ে হাঁটেন না বলে মন্তব্য করেছেন নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী তৈমুর আলম খন্দকার। তিনি বলেছেন, শামীম ওসমান ও সেলিম ওসমান দুই ভাইয়ের হয়ে আমাকে নির্বাচনে নামতে হবে না। গত ৫০ বছরে রাজনীতি করতে গিয়ে তৈমুরের ভিত অনেক শক্ত ও মজবুত। সরকারী দলের নেতাদের বিভেদ-বিভাজনেই নারায়ণগঞ্জের উন্নয়নের প্রধান অন্তরায়। রবিবার বিকেলে মাসদাইয়ের নিজ বাসভবনে সাংবাদিকদের সঙ্গে এক মতবিনিময় সভায় তিনি এসব কথা বলেন। তৈমুর বলেন, নৌকা প্রার্থী ১৮ বছর ধরে মেয়রের দায়িত্বে ছিলেন। তিনি জনগণকে দুর্ভোগ ছাড়া কিছুই দিতে পারেননি। আচরণবিধি লঙ্ঘনের অভিযোগ তুলে তৈমুর বলেন, সরকার দলীয় মেয়র প্রার্থীর পক্ষে রাষ্ট্রযন্ত্র কাজ করছে। তিনি শুরু থেকেই সেই সুবিধা নিয়ে আচরণবিধি ভঙ্গ করছেন। পদত্যাগী হওয়া সত্ত্বেও সিটি কর্পোরেশনের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের নিয়ে প্রচারে অংশ নিচ্ছেন। তার হাতি প্রতীকের পক্ষে গণজোয়ার সৃষ্টি হয়েছে উল্লেখ করে তার কর্মী-সমর্থকদের পরোক্ষভাবে হুমকি-ধমকি দেয়া হচ্ছে। নির্বাচনে লক্ষাধিক ভোটের ব্যবধানে জয়ী হবে বলে সরকারী দলের মুখপাত্ররা ঘোষণা দিচ্ছে, যা নির্বাচন কমিশন ও জনগণকে প্রভাবিত করার সামিল। মেয়র প্রার্থী তার দলের এমপি জাপা দলের এমপিসহ তাকে জড়িয়ে শিষ্টাচার বহির্ভূত মন্তব্য করছেন। তিনি বলেন, সরকারী দলের প্রার্থীর অবস্থান এতটাই নড়বড়ে হয়ে গেছে যে, পুলিশ প্রশাসনের লোক দিয়ে ভয়ভীতি ও সরকার দলীয় নেতাদের মাঠে নামাতে হচ্ছে। তার পক্ষে নির্বাচনী প্রচারে জাপা চেয়ারম্যান নামায় বাড়িতে বাড়িতে তল্লাশী চালানো হয়েছে। ২৭ ওয়ার্ডে আমার সমর্থক নির্বাচন পরিচালনা কমিটি নেতাদের পুলিশ ও গোয়েন্দা হয়রানি ও ভয়ভীতি দেখানো হচ্ছে। তিনি বলেন, তিনি মেয়র নির্বাচিত হলে সিটি কর্পোরেশনকে সিন্ডিকেটমুক্ত করবেন। জনবান্ধব নগরী গড়ে তুলবেন। এ সময় তৈমুর আলমের সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন সাবেক সাংসদ এস এম আকরাম, নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক এ টি এম কামাল, সিদ্ধিরগঞ্জ থানা বিএনপির সাবেক সভাপতি কামাল হোসেন ও সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান আতাউর রহমান মুকুল প্রমুখ।
নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে প্রশাসনের ৯টি টিম মাঠে ॥ নাসিক নির্বাচনে আচরণবিধি লঙ্ঘিত হচ্ছে কিনা- তা দেখার জন্য ৯ জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে ৯টি টিম ২৭টি ওয়ার্ডে কাজ করছে। প্রতিটি টিম ৩টি ওয়ার্ডে দায়িত্ব পালন করছে। প্রতিদিনই নির্বাহী ম্যাস্ট্রেটের নেতৃত্বে গঠিত টিম আচরণবিধি লঙ্ঘনের দায়ে জরিমানা আদায় করছে। নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনে সিদ্ধিরগঞ্জে শনিবার রাত পর্যন্ত আচরণবিধি লঙ্ঘনের দায়ে ৪টি মামলায় ১৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।
নির্বাচন উপলক্ষে জেলা পুলিশের বিশেষ অভিযান ॥ নাসিক নির্বাচন উপলক্ষে বহিরাগত ও দুষ্কৃতিকারীরা যেন কোন বিশৃঙ্খলা করতে না পারে, সে জন্য নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশ বিশেষ অভিযান শুরু করেছে। জেলা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জায়েদুল আলম বলেন, শুক্রবার থেকে জেলা পুলিশের বিশেষ অভিযান শুরু হয়েছে। পুরো সিটি কর্পোরেশন এলাকায় ৫ শতাধিক পুলিশ মাঠে কাজ করছে। তিনি বলেন, এ পর্যন্ত শতাধিক গাড়ির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। ৫০টি গাড়ি আটক করা হয়েছে। তিনি বলেন, নির্বাচনে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি ঠিক রাখতে ডিবি পুলিশ, থানা পুলিশ ও বিশেষ অভিযানিক দল সর্বদা তৎপর রয়েছে।
নাসিক এখন পোস্টারের নগরী ॥ নাসিক নির্বাচনের দিনক্ষণ যতই এগিয়ে আসছে, ততই পোস্টারের সংখ্যাও বাড়ছে। রাস্তাঘাট, অলি-গলি ও আনাচে-কানাচে ঝুলছে বিভিন্ন প্রার্থীর পোস্টার। নগরীর প্রধান সড়ক, বঙ্গবন্ধু সড়কসহ বিভিন্ন সড়কেও সাত মেয়র প্রার্থী ও ১৮২ জন কাউন্সিলর ও সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলরদের সাদাকালো পোস্টার ঝুলছে। অনেক যানবাহনেও প্রার্থীদের পোস্টার শোভা পাচ্ছে। বিভিন্ন স্থানে ঝুলছে বিভিন্ন প্রার্থীর ব্যানারও।

The Daily Janakantha website developed by BIKIRAN.COM

Source: জনকন্ঠ

সম্পর্কিত সংবাদ
সাম্যবাদ ও বিদ্রোহের অভূতপূর্ব সমন্বয়

সাম্যবাদ ও বিদ্রোহের অভূতপূর্ব সমন্বয় সাময়িকী 28 Jan 2022 28 Jan 2022 Daily Janakantha কবি নজরুল ইসলামের মানবতাবোধ ও সাম্যবাদ Read more

বায়ান্ন বাজার তিপ্পান্ন গলি

বায়ান্ন বাজার তিপ্পান্ন গলি শেষের পাতা 27 Jan 2022 27 Jan 2022 Daily Janakantha মোরসালিন মিজান ॥ শুধু কবিতা নিয়ে Read more

কবিতায় তার জীবনদর্শন

কবিতায় তার জীবনদর্শন সাহিত্য 28 Jan 2022 28 Jan 2022 Daily Janakantha দর্শনের আলোকবর্তিকা হাতে নিয়েও যদি বলি, সাংবাদিকের চোখ Read more

আইনের শাসন ও ন্যায়বিচার

আইনের শাসন ও ন্যায়বিচার চতুরঙ্গ 27 Jan 2022 27 Jan 2022 Daily Janakantha সামাজিক ভারসাম্য ও শৃঙ্খলা সংরক্ষণের তাগিদে আমরা Read more

সংস্কারের পর চকচকে চট্টগ্রামের সাগরিকা

সংস্কারের পর চকচকে চট্টগ্রামের সাগরিকা খেলার খবর 28 Jan 2022 28 Jan 2022 Daily Janakantha স্পোর্টস রিপোর্টার, চট্টগ্রাম থেকে ॥ Read more

দেশে করোনায় আরও ১৫ জনের মৃত্যু

দেশে করোনায় আরও ১৫ জনের মৃত্যু প্রথম পাতা 27 Jan 2022 27 Jan 2022 Daily Janakantha স্টাফ রিপোর্টার ॥ করোনা Read more

আমরা নিরপেক্ষ নই ,    জনতার পক্ষে - অন্যায়ের বিপক্ষে ।    গণমাধ্যমের এ সংগ্রামে -    প্রকাশ্যে বলি ও লিখি ।   

NewsClub.in আমাদের ভারতীয় সহযোগী মাধ্যমটি দেখুন